• জুন ২৫, ২০২১

পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের সময় যেভাবে হিসাব করা হয়

প্রিয় নবী (ﷺ) বলেছেন, “নিশ্চয়ই কিয়ামতের দিন বান্দার যে কাজের হিসাব সর্বপ্রথম নেওয়া হবে তা হচ্ছে তার নামায। সুতরাং যদি তা সঠিক হয় তাহলে সে পরিত্রাণ পাবে। আর যদি তা পণ্ড ও খারাপ হয় তাহলে সে ব্যর্থ ও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।” [আবু দাউদ, তিরমিযি, ইবনু মাজাহ, আহমাদ, দারিমী]

শেষ বিচারের পর জান্নাতীরা জান্নাতে চলে যাবেন এবং জাহান্নামীরা চলে যাবে জাহান্নামে। জান্নাতীরা জাহান্নামীদের জিজ্ঞেস করবেন, “কোন জিনিস তোমাদেরকে জাহান্নামে দাখিল করেছে?” [কুরআন ৭৪:৪২] জাহান্নামীরা জবাব দেবে, “আমরা নামাযীদের অন্তর্ভুক্ত ছিলাম না। …” [৭৪:৪৩]

অতএব, ফরয নামায সম্পর্কে উদাসীন থাকা মুসলিম বলে পরিচয় দানকারী কোনো ব্যক্তির পক্ষে শোভনীয় নয়।

দিন ও রাতে নির্দিষ্ট কয়েকটি সময়সীমার মধ্যে ফরয এই নামাযসমূহ আদায় করতে হয়। আল্লাহ বলেন, “নিশ্চয়ই নামায মুসলিমদের উপর এমন এক অবশ্য পালনীয় কাজ যা সময়ের সাথে আবদ্ধ।” [কুরআন ৪:১০৩]

প্রতিটি মুসলিমের জন্য অবশ্য পালনীয় এই নামাযসমূহ যেহেতু নির্দিষ্ট পাঁচটি সময়সীমার সাথে সম্পর্কিত তাই এই বিষয়ে বিশেষভাবে অবহিত থাকা প্রতিটি মুসলিমের জন্য অপরিহার্য। এই বিষয়টি নিয়েই এখন আমরা সংক্ষেপে জানার চেষ্টা করব।

READ  ওমানে সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ বাংলাদেশির প্রাণহানি, জানা গেল পরিচয়

admin

Read Previous

সন্ধ্যার পর রাস্তায় কোনো শিক্ষার্থী পেলেই … ব্যবস্থা

Read Next

ফের কমছে স্বর্ণের দাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *