• সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১

বৈশাখের অনুষ্ঠান করতে না পারায় ক্ষমা চেয়েছে ছায়ানট

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে রমনার বটমূলে ঐতিহ্যবাহী বর্ষবরণ অনুষ্ঠান এ বছর করোনাভাইরাস পরিস্থিতির করণে সরাসরি করতে পারছে না ছায়ানট। এ জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছে সংগঠনটি।

আজ সোমবার (১২ এপ্রিল) সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লাইসা আহমদ লিসা স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে,

‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, করোনা মহামারির প্রতিকূল পরিস্থিতির জন্য গত বছরের মতো এবারও ছায়ানট ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে বাংলা নববর্ষ উদ্‌যাপন করতে বাধ্য হচ্ছে। পরিস্থিতির ক্রমশ অবনতিতে সবার স্বাস্থ্যঝুঁকির শঙ্কা বটমূলের ঐতিহ্যগত আয়োজন থেকে আমাদের নিরস্ত করেছে।’

বলা হয়েছে, ‘প্রাথমিকভাবে আমদের সিদ্ধান্ত ছিল দর্শকশূন্য অবস্থায় অথবা পরিস্থিতি আরো বেশি প্রতিকূল হলে পহেলা বৈশাখ ভোরের অনুষ্ঠান আগেই রেকর্ড করে নেওয়া। সেই লক্ষ্যে সম্মেলক দলের নিয়মিত মহড়াও চলছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির ক্রমান্বয় অবনতি এবং সরকারের সতর্কতামূলক বাস্তবিক সিদ্ধান্তসমূহ আমাদের মনে শিল্পীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির আশঙ্কা গভীরতর করে তোলে।’

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমাদের বেশ কয়েকজন শিল্পী ও কর্মীও করোনা-আক্রান্ত। ফলে সবার নিরাপত্তা বিবেচনায় অনন্যোপায় হয়ে, আমরা ডিজিটালি এবং পুরনো ও নতুন পরিবেশনের মিশ্রণে অনুষ্ঠান ঢেলে সাজাচ্ছি। বাংলা নববর্ষের প্রথম ভোরে বাংলাদেশ টেলিভিশন ওই ঘণ্টাখানেকের সংকলন সম্প্রচার করার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছে।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ‘আমাদের বাংলা বর্ষবরণের প্রতীকী, সংক্ষেপ ও ডিজিটাল আয়োজনটি সাজানো হয়েছে মানুষের মঙ্গল কামনা এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে উজ্জীবনী গান, বাণী ও কথন দিয়ে। সংকট-প্রভাবিত রূঢ় বাস্তবতার নিরিখে, ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে আপামর বাঙালির প্রাণের এই ঐতিহ্যর মহোৎসবের পূর্ণাঙ্গ আয়োজন করতে না পেরে আমরা মর্মাহত এবং জাতির কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। তবে আমাদের বদ্ধমূল বিশ্বাস সুদিন ফিরবেই।’

READ  প্রবাসী আয় বাড়াতে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

Pial

Read Previous

জাকারবার্গের নিরাপত্তায় বছরে খরচ ২ কোটি ৩০ লাখ ডলার!

Read Next

লকডাউনে কর্মহীন প্রতি পরিবার পাবে ৫০০ টাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *