• সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিশ্বনবী (সা.) এর শিক্ষা

ইসলামে স্বাস্থ্যের প্রতি দৃষ্টি রাখার বিষয়ে অত্যধিক গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া বর্তমান বিশ্বময় করোনা পরিস্থিতির কারণে এদিকে আরও বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে। আল্লাহপাক একমাত্র তার ইবাদত করার লক্ষ্যে মানুষ সৃষ্টি করেছেন। আর সুন্দরভাবে ইবাদত করার জন্য শারীরিক শক্তি প্রয়োজন। একজন সুস্থ মানুষই সঠিকভাবে ইবাদত-বন্দেগি করতে পারে। স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে হলে আমাদের শরীরের প্রতি যত্নবান হতে হবে। শরীরকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

রাসুলুল্লাহ (সা.)ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করে বিভিন্নস্থানে তার উম্মতকে নসিহত করেছেন। হাদিসে এসেছে— হজরত আবু মালেক আশআরি রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ইমানের অর্ধেক।’ (মুসলিম)

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাকে ইসলামে যেভাবে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে তা অন্য কোনো ধর্মে এরূপ গুরুত্ব দেয়া হয়নি। ইসলামে ব্যক্তির পরিচ্ছন্নতা, ঘরের পরিচ্ছন্নতা ও পরিবেশের পরিচ্ছন্নতা, রাস্তা-ঘাটের পরিচ্ছন্নতাসহ এমন কোনো দিক নেই যা থেকে এ বিষয়টি বাদ পড়েছে। পরিচ্ছন্নতার ওপর ইসলাম যে এতবেশি গুরুত্বারোপ করেছে; এর কারণ কী? পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ওপর গুরুত্ব দেয়ার মূল কারণ হলো— আমরা যদি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকি তাহলে আমরা সুস্থ থাকব, আমাদের স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে একমাত্র অপরিচ্ছন্নতার কারণেই শরীরের রোগ-ব্যাধি দানা বাধে। এমন অনেকে আছেন যারা নিয়মিত গোসল করে না, নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করে না। ফলে কী হয়? এতে শরীরে আস্তে আস্তে বিভিন্ন প্রকার ছোট ছোট রোগ দেখা দেয়। এ ছোট ছোট রোগগুলোই একদিন বড় আকার ধারণ করে। যদিও সুস্থ থাকার জন্য আমাদের চেষ্টার কোনো শেষ নেই।

পৃথিবীতে সুস্থ-সুন্দর জীবন-যাপনের জন্য আমাদের কত আকুতি, কত পরিশ্রম, কত সাধনা। কিন্তু সত্যিকার অর্থে যে পথে সুস্থ থাকা যায় তার সঠিক নিয়ম অনুসরণ না করার কারণে আজ বিশ্বে এমন সব রোগ-ব্যাধি ছড়িয়ে পড়ছে যেগুলো থেকে পরিত্রাণের আর কোনো উপায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

READ  প্রতিবেশীর অধিকার রক্ষার উপকারিতা

মনে রাখতে হবে
জীবনের বড় একটি সম্পদ সুস্থতা। সময় থাকতে এর যথাযথ মূল্যায়ন করতে হবে। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘হে আমার উম্মত! পাঁচটি সম্পদ হারানোর আগে তার মর্যাদা দাও। তাহলো—
* মারা যাওয়ার আগেই তোমার জীবনের প্রতিটি মুহূর্তকে কাজে লাগাও।
* বুড়ো হওয়ার আগে যৌবনকে কাজে লাগাও।
* দারিদ্র্যের আগে সচ্ছলতার মূল্য দাও।
* অসুস্থতার আগে সুস্বাস্থ্যকে মূল্য দাও।
* ব্যস্ততার আগে অবসরকে কাজে লাগাও।’ (মুসতাদরিকে হাকেম)

রাসুলুল্লাহ (সা.) আমাদের অসুস্থ হওয়ার আগে সুস্বাস্থ্য তথা সুস্থতাকে মর্যাদা দেয়ার কথা বলেছেন। সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার প্রতি উৎসাহিত করেছেন। নিজেদের সুস্থতায় বারবার এ দোয়া পড়তে উম্মতে মুহাম্মাদিকে তাগিদ দিয়েছেন। সব সময় এ দোয়াটি বেশি বেশি পড়ার কথা বলেছেন বিশ্বনবী—

‘হে আল্লাহ! আমি অস্থিরতা, চিন্তা, নিরুপায় অবস্থা, অলসতা ও অসুস্থতা, ঋণের বোঝা এবং লোকদের দ্বারা আমাকে পরাজিত করা থেকে আপনার আশ্রয় প্রার্থনা করছি।’ (বুখারি, মুসলিম) চলবে…..

admin

Read Previous

ন্যায়বিচারের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ইসলাম

Read Next

জুমু‘আ ছালাতের বর্জনীয় দিকসমূহ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *