• সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১

অসহায়-অক্ষমতায় সাহায্য লাভের ছোট্ট দোয়া

অসহায়-অক্ষমতা কিংবা সহায়-সক্ষম সর্বাবস্থায় মহান আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা মুমিন বান্দার কাজ। বান্দা যখন আল্লাহর কাছে নিজের অসহায়ত্ব তুলে ধরে প্রার্থনা করেন, তখন তিনি ওই বান্দাকে সাহায্য করেন। কুরআনুল কারিমে আল্লাহ তাআলা মুমিন বান্দার জন্য এ রকমই একটি ছোট্ট দোয়া তুলে ধরেছেন-

رَبِّىْ أَنِّي مَغْلُوبٌ فَانتَصِرْ
উচ্চারণ : ‘রাব্বি আন্নি মাগলুবুং ফাংতাচির।’
অর্থ : হে আমার প্রভু! আমি তো অসহায়, অতএব তুমি আমাকে সাহায্য কর।’
এ দোয়ার পটভূমি
হজরত নুহ আলাইহিস সালাম আল্লাহর কঠিন মহাপ্রলয়ের কথা শুনে অসহায় হয়ে পড়েছিলেন। আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেছিলেন। মহান আল্লাহ তাঁকে চরম অসহায়ত্ব ও অক্ষমতা থেকে মুক্তিও দিয়েছিলেন।

হজরত নুহ আলাইহিস সালামের সে আহ্বান ও দোয়া মহান আল্লাহর কাছে এত বেশি প্রিয় ও পছন্দ হয়েছিল যে, তা তিনি উম্মতে মুহাম্মাদির সব অসহায়-অক্ষমদের জন্য কুরআনুল কারিমে তুলে ধরেছেন। যাতে তারাও এ দোয়ার মাধ্যমে চরম অক্ষমতায় মহান আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করতে পারেন। কুরআনুল কারিমে তা এভাবে ওঠে এসেছে-

فَدَعَا رَبَّهُ أَنِّي مَغْلُوبٌ فَانتَصِرْ
‘অতপর সে তার পালনকর্তাকে ডেকে বলল- আমি অক্ষম, অতএব, তুমি আমাকে সাহায্য কর।’ (সুরা ক্বামার : আয়াত ১০)পরবর্তী আয়াতে মহান আল্লাহ তাআলা হজরত নুহ আলাইহিস সালামের অসহায়ত্বের কথাগুলো এভাবে তুলে ধরেছেন-

‘তখন আমি খুলে দিলাম আকাশের দরজা প্রবল বারিবর্ষণের মাধ্যমে। আর ভুমি থেকে প্রবাহিত করলাম (প্রবল পানির) প্রস্রবণ। অতপর সব পানি মিলিত হল এক পরিকম্পিত কাজে। আমি নূহকে আরোহণ করালাম এক কাষ্ঠ ও পেরেক নির্মিত জলযানে। যা চলত আমার দৃষ্টির সামনে। এটা তার পক্ষ থেকে প্রতিশোধ ছিল, যাকে প্রত্যখ্যান করা হয়েছিল। আমি একে এক নিদর্শনরূপে রেখে দিয়েছি। অতএব, কোনো চিন্তাশীল আছে কি?’ (সুরা কামার : আয়াত ১১-১৫)

মুমিন মুসলমানের উচিত, অসহায়-অক্ষম কিংবা সহায়-সক্ষম সর্বাবস্থায় মহান আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা। যে আল্লাহ চরম বিপদে, অসহায় ও অক্ষম অবস্থায় সাহায্য করেন। যেভাবে হজরত নুহ আলাইহিস সালামকে সাহায্য করেছিলেন।

READ  জুমআর দিনে যত চমকপ্রদ পুরস্কারের ঘোষণা

সুতরাং কোনো মুমিন বান্দা যদি আবেগের সঙ্গে মহান আল্লাহর কাছে নিজের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরে, সাহায্য প্রার্থনা করে; তবে মহান আল্লাহ ওই বান্দাকে ফেরত দেন। তার দোয়া কবুল করেন। কেননা তিনি তার বান্দাকে খালি হাতে ফেরত দিতে লজ্জাবোধ করেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন স্বয়ং বিশ্বনবি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সব সময় নিজের অসহায়ত্ব তুলে ধরে তার সাহায্য কামনায় কুরআনের এ ছোট্ট দোয়াটি বেশি বেশি পড়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।

admin

Read Previous

‘মুজিব শতবর্ষের বিজয় দিবস উপলক্ষে চৌফলদন্ডী স্টুডেন্ট ফোরাম কর্তৃক শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান-২০ইং

Read Next

আল্লাহ যেভাবে হেদায়েত ও মর্যাদা দান করেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *