• সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১

দেহরক্ষীর সঙ্গে সম্পর্ক! সত্যি লুকাতে কোটি-কোটি টাকা ঘুষ রানির

দেহরক্ষীর সঙ্গে বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। দুজনের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সেই সম্পর্ক তো আর প্রকাশ্যে আনা যায় না। হাজার হোক তিনি দেশের শাসকের স্ত্রী। তাই সেই দেহরক্ষীর মুখ বন্ধ রাখতে চলল অকাতরে খরচ। উপহার বিলি করা। কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হয়নি।

বেশ কয়েক বছর পর দুদিন আগে প্রকাশ্যে এলো দুবাইয়ের বর্তমান শাসক শেখ মোহাম্মদ অাল-মখতুমের ষষ্ঠ পত্নী হায়ার কীর্তি। তার দেহরক্ষী রাসেল ফ্লাওয়ার্সের সঙ্গে বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। এমনকি, দুজনের মধ্যে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কও হয়েছিল। সেই কথা চাপা দিতেই উপহার দিয়েছিলেন তিনি।

৪৬ বছরের রানি হায়ার সঙ্গে তার ৩৭ বছরের দেহরক্ষী রাসেল ফ্লাওয়ার্সের সম্পর্ক ছিল। হায়া তার দেহরক্ষী রাসেলকে দিয়েছেন ১.২ মিলিয়ন ইউরো। এছাড়া একাধিক মূল্যবান উপহারও দিয়েছেন রানি। তালিকায় রয়েছে এক ভিন্টেজ শটগান, অপূর্ব কারুকাজ করা সিগার রাখার এক হিউমিডর। এর মধ্যে থাকা সিগারের হিউমিডরের দামই নাকি কয়েক হাজার পাউন্ড! এখানেই শেষ নয়, প্রচুর অর্থ খরচ করে বিশেষভাবে গাড়ির নেমপ্লেটও বানিয়ে দিয়েছিলেন হায়া। তাতে সৌভাগ্যসূচক সংখ্যা বসিয়ে লেখা ছিল- RU55ELLS! যার মোট দাম প্রায় ১২ কোটি টাকা। এছাড়া বিশেষ এক চুনি বসানো আংটিও রাসেলকে উপহার দিয়েছিলেন হায়া।

রাসেল এসব উপহার, নগদ এবং রানির প্রেম নিয়ে মুখ বন্ধ করে রেখেছিলেন। কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই তা মানতে পারেননি রাসেলের স্ত্রী। বিবাহ বিচ্ছেদেরও সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন তিনি।

এরপর রানি এবং শেখের বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা যখন লন্ডন হাইকোর্টে ওঠে, তখন দুই সন্তানকে হেফজতে রাখা নিয়ে টানাপড়েন চলছিল। ওই সময়েই এই গোপন সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে আসে! সংবাদসূত্র : ডেইলি মেইল

READ  হালাল ভালোবাসা এত সুন্দর আগে ভাবিনি : সানা খান

admin

Read Previous

বাবরের গোপন অভিসারে পাকিস্তানে তোলপাড়

Read Next

বিয়ে নিবন্ধিত না হলে প্রমাণের উপায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *